বঙ্গবন্ধুর জীবনী নিয়ে ঢাবিতে কুইজ প্রতিযোগিতা

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের উদ্যোগে ‘বঙ্গবন্ধু পাঠ : অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ শীর্ষক কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (৭ মার্চ) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনের অ্যালামনাই ফ্লোরে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ গ্রন্থ এবং তার সম্পর্কে ১০০টি কুইজভিত্তিক প্রশ্নের লিখিত পরীক্ষা নেয়া হয় শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে। পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

পরে বিজয়ীদের নিয়ে একটি ‘ডিজিটাল কুইজ’-এর আয়োজন করা হয়। এই কুইজে বিজয়ী শিক্ষার্থীদের পর্যায়ক্রমে বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ গ্রন্থ এবং তার সম্পর্কে বিভিন্ন প্রশ্ন করা হয়। প্রতিটি প্রশ্নের সঠিক উত্তর বাছাইয়ের জন্য চারটি করে ভিন্ন ভিন্ন উত্তর দেখানো হয়। শিক্ষার্থীরা এর মধ্য থেকে তার কাঙ্ক্ষিত উত্তরটি বেছে নেন।

কুইজে অংশগ্রহণ করে শিক্ষার্থীরা উল্লাস প্রকাশ করেন। সাইফুল শিকদার নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে খুবই উল্লসিত এবং আনন্দিত এমন একটি অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পেরে। এর আগে আমি কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এমন আয়োজন হতে দেখিনি। এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে আমার জানার বাইরেও বেশ কিছু তথ্য জানতে পেরেছি। এ রকম একটি অনুষ্ঠান আয়োজন করার জন্য আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন এবং সুভাষ সিংহ রায় স্যারকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাই।’

এর আগে সকালে আয়োজনের উদ্বোধন করেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ। আরও উপস্থিত ছিলেন- বিশিষ্ট সাংবাদিক সৈয়দ আবুল মকসুদ, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) চেয়ারম্যান ড. মো. কামরুল আহসান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম মহাসচিব সুভাষ সিংহ রায়, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওসার, সহ-সভাপতি আনোয়ারুল আলম পারভেজ, মহাসচিব রঞ্জন কর্মকার, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রোকেয়া প্রাচী প্রমুখ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথিরা বলেন, বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীতে এই ভূখণ্ডের ইতিহাস পাওয়া যায়। ১৯৭১ সালে তিনি এই দেশের এক নতুন ইতিহাস তৈরি করেন। তিনি শুধু পাকিস্তান থেকে দেশকে স্বাধীনই করেননি বরং নিজ আদর্শ এবং নিয়ম-শৃঙ্খলায় গড়ে তুলেছেন নতুন করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here