প্রতি বছরের শুরুতে বঙ্গমাতা শেষে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ

কাজটি চ্যালেঞ্জের। তারপরও প্রতি বছর দু’টি আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন।

মঙ্গলবার প্রথম বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ নারী আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের লোগো উন্মোচন ও ড্র অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে বাফুফে সভাপতি বলেছেন, ‘আমরা প্রতিবছর বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ করে আসছি। এখন থেকে পুরুষদের এ টুর্নামেন্টের পাশপাশি নারীদের যে বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ শুরু করছি এটাও হবে প্রতি বছর।

তিনি দু’টি টুর্নামেন্টের সময়ও ঠিক করেছেন ইতিমধ্যে। বঙ্গমাতা টুর্নামেন্ট আয়োজন করবেন বছরের শুরুর দিকে আর বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ বছরের শেষের দিকে। বাংলাদেশের মেয়েদের ফুটবল মানেই বয়সভিত্তিক খেলোয়াড়দের প্রাধান্য। জাতীয় দল এখনো পরিপক্ক হয়ে উঠেনি।

যে কারণে এ অঞ্চলের নতুন এ টুর্নামেন্ট শুরু হচ্ছে বয়সভিত্তিক। কয়েক বছর পর নারীদের এ টুর্নামেন্ট জাতীয় দল নিয়ে করবে বাফুফে।

‘আজকের দিনটা আমার জন্য খুবই স্মরণীয়। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপের পর আমরা বঙ্গমাতা আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপ করতে যাচ্ছি। এএফসি ও ফিফার ব্যস্ত সূচির মধ্যে টুর্নামেন্ট আয়োজনের দল ও শিডিউল পাওয়া কঠিন। অনেক দেশই এখন আর নিজেদের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট করতে পারছে না। নেহেরু ও মারদেকা কাপের মতো টুর্নামেন্টও অনিয়মিত। কিন্তু আমরা প্রতি বছর দুটি টুর্নামেন্ট করবো। একটি ছেলেদের ও একটি মেয়েদের’- বলেছেন বাফুফে সভাপতি।

বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ সম্প্রচার করবে সেরকারী টিভি চ্যানেল আরটিভি ও নাগরিক টিভি। টুর্নামেন্টের থিমসংয়ে কন্ঠ দিয়েছেন মমতাজ। ড্র অনুষ্ঠান শেষ হয়েছে মমতাজ ও তার সঙ্গীদের কন্ঠে ‘এগিয়ে যাওয়ার নেই মানা’ থিমসং পরিবেশনের মধ্য দিয়ে। টুর্নামেন্টের মিডিয়া পার্টনার আরটিভির সিইও সৈয়দ আশিক রহমান ও নাগরিক টিভির সিইও আব্দুন নূর তুষার উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here