সোমবার, ১৭ Jun ২০১৯, ০৭:২৭ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞাপন :
বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন : ০১৯৭৭ ৫ ৯৯৯ ৮১, ০১৯৭৭ ৫ ৯৯৯ ৮২ ।  বিজ্ঞাপন দিন ই-মেইলে, পেমেন্ট করুন বিকাশে। বিকাশ (পারসোনাল) : ০১৯১২ ৩০ ৫০ ১৯, ই-মেইল : likhon199947@gmail.com
সংবাদ শিরোনাম :
আসছে সিজিপিএ ৪, থাকছে না জিপিএ ৫ বাজেটে স্বর্ণ আমদানি শুল্কহার কমানোর প্রস্তাব বাজেটে মোবাইল গ্রাহকের কথা বলার ওপর বাড়ছে করহার ইফতারে সুস্বাদু আমের পায়েস বিমানের চেয়েও দ্রুতগতির ট্রেন! ইতিকাফ অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যবহ আমল ভর্তির আগেই ঝরে পড়তে পারে অনেক শিক্ষার্থী ইফতারে গলা ভেজাতে তরমুজের মিল্কশেক দ্বিতীয় মেঘনা, গোমতী সেতু উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী বিশ্বকাপের ১২টি রেকর্ড থানায় আসতে হবে না, ফোন দিন আপনার ঘরে পৌঁছে যাবে পুলিশ ফিরছেন নান্নু, যাচ্ছেন সুমন : আয়ারল্যান্ড থেকে মাঠে নামল ডগ স্কোয়াড : মাদক ও বিস্ফোরক ধরতে নারী হকি দলের প্রশিক্ষণ ক্যাম্প শুরু হাইকোর্ট : মুক্তিযোদ্ধা শব্দের আগে ‘ভুয়া’ বলা যাবে না

অধ্যক্ষ-প্রধান শিক্ষক নিয়োগেরও ইঙ্গিত – এনটিআরসিএর মাধ্যমে

 

বেসরকারি স্কুল-কলেজের শিক্ষকদের শীর্ষ পদেও নিয়োগ দেবে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। আগামী বছর থেকে এ নিয়োগ কার্যক্রম শুরু হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (বিদ্যালয়) জাবেদ আহমেদ।

বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) এনটিআরসিএর এক সভায় এ প্রতিষ্ঠানের আইন পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে সভা সূত্রে জানা গেছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব জাবেদ আহমেদের সভাপতিত্বে সভা হয়।

জানা গেছে, নিজস্ব আইনে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ সুপারিশ করে এনটিআরসিএ। সম্প্রতি মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরে এক সভায় এনটিআরসিএর মাধ্যমে অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ, প্রধান শিক্ষক ও সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগ কার্যক্রম শুরুর প্রস্তাব করা হয়। শিক্ষামন্ত্রীর এ প্রস্তাবের ওপর ভিত্তি করে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এ-সংক্রান্ত একটি লিখিত প্রস্তাব পাঠানো হয়। সে প্রস্তাব নিয়ে শিক্ষা মন্ত্রাণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব জাবেদ আহমেদের সভাপতিত্বে এনটিআরসিএতে সভা হয়।

সভা সূত্রে জানা গেছে, যেহেতু এনটিআরসিএর আইনে শুধু সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দেয়ার কথা বলা আছে, তাই আইন সংশোধন না করে প্রতিষ্ঠানের প্রধান পদগুলোতে নিয়োগ দেয়া সম্ভব নয়।

এ কারণে এ প্রতিষ্ঠানের আইন পরিবর্তনের বিষয়টি নিয়ে সভায় আলোচনা হয়েছে। আইনে কি ধরনের পরিবর্তন আনা প্রয়োজন, নতুন করে কী কী সংযোগ করা দরকারসহ কোন রূপরেখায় শিক্ষকদের শীর্ষ পর্যায়ের পদগুলোতে নিয়োগ দেয়া হবে তা নিয়ে সভায় আলোচনা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। দ্রুত এ বিষয়ে আরও বৈঠক হবে বলে জানা গেছে।

এনটিআরসিএর কর্মকর্তারা জানান, বেসরকারি কলেজে গভর্নিং কমিটির মাধ্যমে অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ এবং স্কুলে ম্যানেজিং কমিটির মাধ্যমে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়। এসব নিয়োগ প্রক্রিয়ায় নানা ধরনে অনিয়ম হয় বলে বিভিন্ন সময় অভিযোগ পাওয়া যায়।

কমিটির সদস্যরা আর্থিক সুবিধা নিয়ে তাদের মনোনীত প্রার্থীদের নিয়োগ দেন। ফলে যোগ্য প্রার্থীরা বঞ্চিত হচ্ছেন। এসব অভিযোগ আমলে নিয়ে এনটিআরসিএর মাধ্যমে শিক্ষকদের শীর্ষ পর্যায়ের পদগুলোতে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরুর নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (বিদ্যালয়) জাবেদ আহমেদ জাগো নিউজকে বলেন, ‘অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ, প্রধান শিক্ষক ও সহকারী প্রধান শিক্ষক নিয়োগের বিষয়ে এনটিআরসিএর সঙ্গে প্রাথমিক আলোচনা হয়েছে। এ-সংক্রান্ত একটি বৈঠক হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘এনটিআরসিএর যে আইন রয়েছে তা দিয়ে এসব পদে নিয়োগ কার্যক্রম শুরু করা সম্ভব নয়। পাশাপাশি এ কার্যক্রম শুরু করতে এর রূপরেখা কেমন হতে পারে সেসব নিয়ে প্রাথমিকভাবে আলোচনা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এটি নিয়ে আরও অনেক আলোচনার প্রয়োজন রয়েছে।’

তবে আগামী বছর থেকে এ কার্যক্রম শুরু হতে পারে বলে ইঙ্গিত দেন তিনি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Education News.
Design & Developed BY M/S PRINCE ENTERPRISE